জাপানে কাজের ভিসা ২০২২ | জাপান ভ্রমণ ভিসা | জাপান স্টুডেন্ট ভিসা

জাপানে কাজের ভিসা ২০২২ | জাপান ভ্রমণ ভিসা | জাপান স্টুডেন্ট ভিসা

কাজের ভিসা নিয়ে যারা জাপান যেতে চান তাদের জন্য 2022 সাল একটি সুবর্ণ সুযোগ হতে পারে। বিগত দিনগুলোতে জাপান কাজের ভিসা পাওয়া খুবই কঠিন ব্যাপার ছিল সে অবস্থার অবসান ঘটতে যাচ্ছে খুব শীঘ্রই। এই উপমহাদেশে মানুষের জন্য কাজের ভিসা পাওয়া অসম্ভব ব্যাপার ছিল। পৃথিবীর তৃতীয় অর্থনৈতিক পাওয়ার জাপান এবার খুলে যাচ্ছে তাদের চাকরির ভিসা বা কাজের ভিসা। তাই 2022 সালে কাজের ভিসা নিয়ে জাপান যাওয়ার সুবর্ণ সুযোগ তৈরি হয়েছে আজকে আমরা জাপানে কাজের ভিসা এবং জাপান ভ্রমণ ভিসা এবং জাপানি স্টুডেন্ট ভিসা নিয়ে বিস্তারিত তুলে ধরার চেষ্টা করব

জাপানে কাজের ভিসা ২০২২

জাপান যাওয়ার জন্য কোন টাকা লাগবে না। সমস্ত খরচ বহন করবে নিয়োগকারী। সে ক্ষেত্রে আপনাকে উক্ত বিষয়ে প্রতি নির্বাচিত হতে হবে। নির্বাচিতদের জন্য 4 মাসব্যাপী জাপানি ভাষা ও সংস্কৃতি সম্পর্কে শিখানো হবে। জাপানি সরকারের অভিবাসন এবং তাদের নীতি অনুযায়ী একজন কর্মীকে উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে উঠতে সাহায্য সহযোগিতা করা হবে। বিভিন্ন দেশ ভ্রমণ ভিসা নিয়ে প্রবাসে পাড়ি জমান নানা সমস্যায় পড়ে থাকেন এই সমস্যা মধ্যপ্রাচ্য ও মালয়েশিয়ায় প্রতিনিয়ত দেখা যায় কিন্তু উন্নত দেশগুলোতে এমন ঘটনা  দেখাই যায় না

আপনাকে জাপান চাইতে হলে অবশ্যই 4 মাসব্যাপী তাদের কৌটা সম্পন্ন করা লাগবে এবং আপনার শারীরিক যোগ্যতা এবং গঠন সবকিছু ঠিকঠাক থাকা লাগবে। শারীরিকভাবে ঠিক থাকলে আপনাকে কিছু ট্রেনিং এর মাধ্যমে তারা নির্বাচন করে নিতে উত্তর ট্রেনিংয়ে যদি আপনি ঠিকঠাকমতো পারফরম্যান্স করতে পারেন তাহলে অবশ্যই আপনি জাপানে কাজের ভিসা পাবেন। তবে অবশ্যই আপনাকে এইচএসসি ও সমমান পাস থাকা লাগবে। তাহলে আপনি সরকারি ভাবে জাপান ভিসা পেয়ে যাবেন


জাপান স্টুডেন্ট ভিসা

জাপানে অনেকেই স্টুডেন্ট ভিসা নিয়ে যান তবে বিগত বছরগুলোতে খুবই কম সংখ্যক কর্মী নিয়োগ দিয়েছিল জাপান সরকার তাদের মধ্যে অনেকেই স্টুডেন্ট হিসাবে যোগ দিয়েছেন আবার অনেকেই কাজের ভিসা তে যোগ দিয়েছেন তবে মোটামুটি 400 লোকের মত নিয়োগ পেয়েছিলেন। তাই বর্তমানে জাপান সরকার আরো কিছু লোক নেওয়ার জন্য বাংলাদেশ প্রবাসী সংস্থার সঙ্গে আলাপ হয়েছে তারা নির্দিষ্ট ট্রেনিং এবং ভাষা শিক্ষার মাধ্যমে দক্ষ লোক নিবেন

জাপানি স্টুডেন্ট ভিসা নিতে হলে আপনাকে এসএসসি সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে ব্যাচেলর ডিগ্রী গ্রাজুয়েশন কমপ্লিট থাকা লাগবে মাস্টার্স বা পোস্ট গ্রাজুয়েশন ভর্তির জন্য সেখানে আপনি আবেদন করতে পারবেন। ব্যাচেলর ডিগ্রী মাস্টার ডিগ্রী প্রোগ্রাম নিয়ে আপনি সেখানে গবেষণার জন্য বা হায়ার স্টাডিজ জন্য জাপানে পাড়ি জমাতে পারবেন

তবে দুবাই মালয়েশিয়ার সিঙ্গাপুরের মতো আপনাকে এখানে স্টুডেন্ট ভিসা বা ভ্রমণ ভিসার জন্য কোন সমস্যায় পড়তে হবে না কারণ সেই সমস্ত দেশে স্টুডেন্ট ভিসা ভ্রমণ ভিসা নিয়ে যদি যান এবং সেখানে গিয়ে যদি আপনি কাজে নিয়োগ হন তাহলে সেই ক্ষেত্রে আপনাকে সমস্যার মধ্যে পড়তে হয় তবে জাপানে গিয়ে আপনি এই সমস্ত বিষয়ের উপর কাজও করতে পারবেন কোন সমস্যা হবে না


জাপানি স্টুডেন্ট ভিসার জন্য কি কি লাগে

জাপানি স্টুডেন্ট ভিসার জন্য নির্ধারিত কিছু বিষয়ের প্রতি তারা দেখে থাকে উক্ত বিষয়ে যদি ঠিকঠাক থাকে তাহলে আপনি স্টুডেন্ট ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন তা নিচে তুলে ধরা হলো

  • আপনার ব্যাংক এবং ইনকামের একটি স্টেটমেন্ট লাগবে
  • আপনি কোন বিষয়ে স্কলারশিপ পেয়েছেন তার একটি প্রমাণ
  • আপনার পারিবারিক ব্যক্তিগত সার্টিফিকেটগুলো
  • স্কলারশিপের ফরম আপনার এনআইডি কার্ড এবং নিবন্ধন
  • আপনি যে বিশ্ববিদ্যালয়ে হতেই স্কলারশিপ পেয়েছেন তার একটি সত্যায়িত পত্র
  • এবং আপনার একটি কভার লেটার সাথে থাকা লাগবে

জাপান ভ্রমণ ভিসা

বর্তমান সময়ে জাপান ভ্রমণ ভিসা আগের থেকে অনেকটাই জটিল হয়েছে কারণ করণা মহামারীর কারণে ভ্রমণ ভিসা তাদের বন্ধ ছিল সে ক্ষেত্রে নতুন ভাবে আবার ভ্রমণ ভিসা চালু করার চিন্তাভাবনা করেছি জাপান সরকার। তাই কেউ যদি ভ্রমণ ভিসা নিয়ে এসে দেশে কাজের উদ্দেশ্যে যান তাহলে তাদের ভিসা আপডেট টা চেক করে নিবেন তাহলে আপনি নিশ্চিত হয়ে যাবেন ভ্রমণ ভিসা সম্পর্কে। আর আমাদের এখানে চোখ রাখুন আমরা তাদের ভিসা কার্যক্রম চালু হওয়া মাত্রই আমরা এখানে আপডেট করে দিব। 

অন্যান্য দেশের মতো আপনি ভ্রমণ ভিসা তে যে কোন সমস্যায় পড়তে হবে না কারণ দুবাই মালয়েশিয়া বা অন্যান্য দেশগুলোতে ভ্রমণ ভিসা নিয়ে গেলে সেখানে আপনি কোন কাজ করতে পারবেন না বরং সে আপনাকে আরো জরিমানা করবে। তাই এখানে নিশ্চিত থাকুন যে আপনি যদি ভ্রমণ ভিসা পেয়ে সেখানে যান তার পরেও আপনার কোন সমস্যা হবে না আপনি নিশ্চিন্তে কাজ করতে পারবেন এবং বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করতে পারবেন


জাপানে কোন কাজের বেতন বেশি

বর্তমানে বিভিন্ন কাজের উপরে লোক নিয়োগ দিচ্ছে তবে নিয়োগ পাওয়ার আগে অবশ্যই আপনাকে সেই কাজ বিষয়ে দক্ষ হতে হবে সেখানে হোটেল রেস্টুরেন্ট মালি এ সমস্ত বিষয় ছাড়াও কেয়ারিং এর কাজগুলো করতে পারবেন। এবং এই কাজগুলোতে নির্ধারিত ডিউটি অথবা মাসিক ভিত্তিতে কাজ করা হয়ে থাকে তবে বিভিন্ন কাজের জন্য বিভিন্ন বেতন নির্ধারিত থাকে


জাপান যেতে কত টাকা লাগে

আপনি জাপানি স্টুডেন্ট ভিসায় এবং ভ্রমণ ভিসায় যেতে পারেন তবে সরাসরি ব্যাচেলর মাস্টার ডিগ্রী জন্য আপনাকে যাইতে হবে। সে ক্ষেত্রে ইংরেজি মিডিয়ামে পড়তে ইচ্ছুক হন তাহলে আপনাকে প্রতিবছর ব্যয় করা লাগবে 16 থেকে 17 লাখ টাকা এবং টিউশন ফি দিয়ে পড়তে হবে তবে আপনি যদি চিন্তা করে থাকেন জাপানকে লাখ লাখ টাকা আয় করে সমস্ত টাকা শোধ করবেন তাহলে এটা কখনোই সম্ভব না

তাছাড়া যদি আপনি কাজের উদ্দেশ্যে যান তাহলে বাংলাদেশী নির্বাচিত হয় ভাবে তাদের ভাষা শিখে সে ক্ষেত্রে যদি বাংলাদেশ সরকারের মাধ্যমে যাইতে চান তাহলে আপনার কোন টাকা পয়সা লাগবে না। এমনকি আপনার কাজের জন্য চিন্তা করা লাগবে না এখান থেকেই আপনি কাজের ভিসা নিয়ে সেখানে পাড়ি জমাতে পারবেন। তাই যদি নির্ধারিত কাজ এর জন্য যাইতে চান তাহলে উক্ত বিষয় এর উপর এপ্লাই করুন


জাপানে কোন কাজের চাহিদা বেশি

জাপানের বর্তমানে ক্লিনিং পদে ব্যাপকভাবে চাকরির নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করছে তাদের বিভিন্ন জব ওয়েবসাইটগুলোতে। কেউ যদি আগ্রহী হয়ে থাকেন তাহলে তাদের এই ওয়েবসাইটে ভিজিট করে আপনার সিভি সাবমিট করে দেখতে পারেন। তবে অবশ্যই সিভিতে আপনার মিনিমাম এক্সপেরিয়েন্স উল্লেখ করতে হবে আপনি পূর্বে কোথাও কাজ করেছেন কিনা এবং কোন কোন কাজের অভিজ্ঞতা আছে এবং কতদিন যাবৎ কাজ করেছেন তার একটি প্রমাণ স্বরূপ সার্টিফিকেট তুলে ধরা লাগবে। ক্লিনিং সহ বিভিন্ন মেকানিক্যাল এবং ড্রাইভিং এর কাজের গুরুত্ব প্রতিনিয়ত বাড়ছে জাপানে। এবং বর্তমানে রেস্টুরেন্ট সহ বিভিন্ন শপিংমলে ক্লিনিং পদে ব্যাপকভাবে নিয়োগ দিচ্ছে


Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url